৮৯ বছর পর এমন সিরিজ পরাজয় ঘটল অস্ট্রেলিয়ার

খুলনার চিত্র ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত : শনিবার, ১৭ জুলাই, ২০২১

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পঞ্চম টি-টোয়েন্টিও ১৬ রানে জিতে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ফলে ৪-১ ব্যবধানে সিরিজ হারল অসিরা। হোয়াইটওয়াশই হতে পারত অ্যারন ফিঞ্চের দল।

আন্দ্রে রাসেলের অতি সাবধানী ইনিংসের কারণ চতুর্থ ম্যাচে জয় হাতছাড়া হয় ক্যারিবীয়দের।

এরপরও পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ৪-১ ব্যবধানে হার অস্ট্রেলিয়ার জন্য বেশ ভারী বলতে হবে। কারণ ৮৯ বছর ধরে এমন সিরিজ পরাজয়ের তেতো স্বাদ পায়নি অস্ট্রেলিয়া।

১৯৩২ সালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ডের কাছে এই স্বাদ পেয়েছিল অসিরা!

সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার ভোরো টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ধ্বংসাত্মক সূচনা করেন ওপেনার এভিন লুইস। ১৬ বলে ১২ রান করে অ্যাডাম জাম্পার বলে আউট হন আন্দ্রে ফ্লেচার।
এরপর ‘দ্য ইউনিভার্স বস’ ক্রিস গেইল ৭ বলে ২ চার ২ ছক্কায় ২১ রানের কেমিও ইনিংস খেলেন। মনে হচ্ছিল নিজের চেনা রূপকে আরো দীর্ঘায়িত করবেন গেইল। কিন্তু তা আর হতে দেননি সোয়েপশন।

কিন্তু অপরপ্রান্তে দাঁড়িয়ে তাণ্ডব চালান এভিন লুইস। ৩৪ বলে ৭৯ রান করেন। ৪ বাউন্ডারির সঙ্গে ৯ ছক্কা হাঁকিয়ে সতীর্থ ক্রিস গেইলের ছক্কার বিশ্বরেকর্ড ভাঙেন তিনি।

মাত্র ৪২ ইনিংসেই একশত ছক্কা হাঁকানোর গৌরব অর্জন করে নিলেন এ ক্যারিবীয় বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

যা করতে গেইলের লেগেছে ৪৭ ইনিংস। লুইস ও গেইলের পর এ রেকর্ডে দৌড়ে তৃতীয় অবস্থানে আছেন নিউজিল্যান্ডের কলিন মানরো। মানরো একশ ছক্কা মারেন ৫৭ ইনিংস খেলে। তার পরের রেকর্ড অস্ট্রেলিয়ার অ্যারন ফিঞ্চ ও কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিলের। ছক্কার শতক পূরণে ৭০ ইনিংস লাগে ফিঞ্চের । নিউজিল্যান্ডের গাপটিলের লেগেছে ৭২ ইনিংস।

লুইস আউটের সময় দলীয় সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ১২৪ রান।

লুইস ফিরে গেলে ৩ ছক্বার মারে ১৮ বলে ৩১ রান করে ফেরেন অধিনায়ক নিকোলাস পুরানও।

একটু ধরে খেলতে গিয়েও লাভ হয়নি লেন্দি সিমন্সের। মার্শের বলে আউট হওয়ার আগে সিমন্স খেলেন ২৫ বলে ২১ রান।

এরপর দ্রুত তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে উইন্ডিজরা। শেষ দিকে হেইডেন ওয়ালশের ১২ রানের পর ক্যারিবীয়দের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেটে ১৯৯। শেষ ৩০ বলে মাত্র ৩০ রান তুলতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

কাটায় কাটায় ২০০ রানের তাড়ায় ব্যাট হাতে নেমে প্রথমে জশ ফিলিপের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। রানের খাতাই খুলতে পারেননি তিনি।

তবে বিপদ সামলে নেল অলরাউন্ডার মিচেল মার্শ। মার্শের ১৫ বলে ৩০, মোজেস হেনরিকেসের ১৪ বলে ২১ আর অধিনায়ক ফিঞ্চের ২৩ বলে ৩৪ রানের কল্যাণে ৯.২ ওভারেই ৯৫ তুলে ফেলে অস্ট্রেলিয়া।

এই তিনজনকে দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ে আউট করে ম্যাচে ফিরে আসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হেইডেন ওয়ালশের বলে ফিঞ্চের উড়িয়ে মারলে ফাবিয়ান অ্যালেন যেভাবে তা তালুবন্দী করেন তা এক কথায় অসাধারণ।

এরপর আর খেলায় ফিরতে পারেনি সফরকারীরা। শেষদিকে ম্যাথু ওয়েডের ১৮ বলে ২৬ ও টাইঢের ৮ বলে ১৫ রান শুধু উইন্ডিজের জয়ের অপেক্ষাই বাড়িয়েছে।

নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেটে ১৮৩ রানে থেমে যায় অস্ট্রেলিয়া। ফলে ১৬ রানে পঞ্চম ও শেষ টি-টিটোয়েন্টি নিজের করে নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ম্যাচসেরা হয়েছেন এভিন লুইস, সিরিজ সেরা হেইডেন ওয়ালশ।

সংশ্লিষ্ঠ আরও খবর