রাশিয়ার সঙ্গে ‘খেলা থামান’, যুদ্ধ বন্ধ করুন: পশ্চিমাদের জেলেনস্কি

খুলনার চিত্র ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৭ মে, ২০২২

রাশিয়াকে ঘিরে পশ্চিমাদের খেলা বন্ধ করার এবং আরও কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ইউক্রেনে তাদের ‘কাণ্ডজ্ঞানহীন যুদ্ধ’ থামানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি দাবি করেন তার দেশ স্বাধীনই থাকবে, তবে প্রশ্ন একটাই এর মূল্য কী হবে।

সম্প্রতি পশ্চিমাদের সমালোচনা বাড়িয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। রুশ তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপে ধীরে আগাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। আবার একই সময়ে হাজার হাজার রুশ সেনা ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দুই শহর সিভিয়েরোডোনেটস্ক এবং লিসিচানস্ক ঘিরে ফেলেছে।

ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের তিন মাস হতে চলেছে। এর মধ্যে কিয়েভ দখলের চেষ্টা বাদ দিয়েছে রাশিয়া। ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় ডনবাস এলাকার নিয়ন্ত্রণ সংহত করতে চাইছে তারা। ২০১৪ সাল থেকে ওই অঞ্চলের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সমর্থন দিয়ে আসছে মস্কো।

পশ্চিমা সামরিক বিশ্লেষকরা সিভিয়েরোডোনেটস্ক এবং লিসিচানস্ক শহরের যুদ্ধকে সম্ভাব্য টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে দেখছেন। গত সপ্তাহে মারিউপোলে ইউক্রেনীয় সেনাদের আত্মসমর্পণের পর এই দুই শহরের পতন হলে যুদ্ধ ভিন্ন দিকে মোড় নিতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

বৃহস্পতিবার রাতে এক ভিডিও বার্তায় প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বলেন, ‘ইউক্রেন সবসময় স্বাধীন রাষ্ট্র ছিল আর এটি ভাঙা যাবে না। একমাত্র প্রশ্ন হচ্ছে স্বাধীনতার জন্য আমাদের জনগণকে কী মূল্য দিতে হবে আর আমাদের বিরুদ্ধে কাণ্ডজ্ঞানহীন যুদ্ধের জন্য রাশিয়া কী মূল্য দেবে।’

জেলেনস্কি আরও বলেন, ‘যেসব বিপর্যয়কর ঘটনা উদঘাটিত হচ্ছে তা এখনও বন্ধ করা যেতে পারে, যদি বিশ্ব মনে করে ইউক্রেনের পরিস্থিতিতে তারাও পড়তে পারে, যদি বিশ্ব শক্তিগুলো রাশিয়ার সঙ্গে খেলা না করে এবং যুদ্ধ শেষ করার জন্য সত্যিকার চাপ দেয়।’

জেলেনস্কি জানান, ২৭ দেশের জোট ইউরোপীয় ইউনিয়নে জ্বালানি সরবরাহ করে রাশিয়া প্রতিদিন শত কোটি ইউরো আয় করছে। তিনি প্রশ্ন রাখেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়ন ষষ্ঠ প্যাকেজে (নিষেধাজ্ঞা প্রস্তাব) একমত হওয়ার জন্য আরও কত সপ্তাহ চেষ্টা করবে? রাশিয়ার উপর চাপ আক্ষরিক অর্থে জীবন বাঁচানোর বিষয়। বিলম্ব, দুর্বলতা, বিভিন্ন বিরোধ বা প্রস্তাবের বিরোধিতা কিংবা আগ্রাসীকে ‘শান্ত’ করার চেষ্টার অর্থ হচ্ছে আরও বেশি ইউক্রেনীয় নাগরিকের মৃত্যু।

সূত্র: রয়টার্স

সংশ্লিষ্ঠ আরও খবর