যাবিপ্রবি ছাত্রলীগে সম্পাদক প্রার্থী ছাত্র হত্যা মামলার আসামী তানভির, ছাত্রত্ব নিয়ে প্রশ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৪ জুন, ২০২২

নতুন কমিটি গঠন কার্যক্রম শুরু

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের কমিটি ছাড়াই ছন্নছাড় রয়েছে ছাত্রলীগ। নতুন কমিটি না হওয়ার কারনে বিশ^বিদ্যালয়ে প্রায় বন্ধ রয়েছে ছাত্রলীগের কার্যক্রম, হতাশ হয়ে পড়ছেন রাজপথে থাকা অনেক নেতৃবৃন্দ। ২০১৯ সালের ৩ নভেম্বর সে সময়ের ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ও সংগঠনের কার্যক্রম নিষ্ক্রিয় থাকায় এ কমিটি বাতিল করা হয়। সেই সাথে সংগঠনের দফতর সেলে পদপ্রত্যাশীদের বায়োডাটা জমা দিতে বলা হয়। তবে করোনা মহামারীর কারনে সেসব কার্যক্রম বন্ধ ছিলো। দীর্ঘদিন পর আবারো শুরু হয়েছে যাবিপ্রবি ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের কার্যক্রম। পদ প্রত্যাশীরা জমা দিচ্ছেন তাদের বায়োডাটা। নেতাকর্মীদের নিয়ে শুরু করেছেন দোড়ঝাপ।

শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়, নানা রকম উন্নয়ন মূলক কার্যক্রমে অংশগ্রহণসহ নানা রকম কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগ। তাই শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মীরা চায় সৎ নিষ্ঠাবান ও পরোপকারী নেতাদের হাতে দায়িত্ব তুলে দিতে।

যাবিপ্রবি বিশ^বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি-সাধারন সম্পাদক পদ প্রত্যাশীদের নিয়ে চলছে নানা রকম আলোচনা সমালোচনা। তবে সমালোচনার রয়েছে সাধারন সম্পাদক পদ প্রত্যাশী ফয়সাল তানভির। হত্যা মামলা, মাদকের সাথে সম্পৃক্ততা, সন্ত্রাসী কার্যক্রম সহ নানা রকম অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। ২০১৪ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক শেষ বর্ষের ছাত্র নাইমুল ইসলাম রিয়াদ (২৩) নামে ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সেই হত্যা মামলার আসামী এই তানভির। ২০১৫ সালে হত্যা কান্ডে জড়িত থাকায় এ মামলার চার্জশিটে তার নাম উল্লেখ করা হয়। এ কারনে তাকে সাময়ীক বহিষ্কার করে বিশ^বিদ্যালয় কতৃপক্ষ। এদিকে মাদক সেবনের নানা রকম অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়াও তানভির ছাত্রলীগের নিয়ম বহির্ভুত নানা রকম কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে বলে জানা গেছে।

বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্রত্ব নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে তানভিরের বিরুদ্ধে। ২০১৩-১৪ সেশনের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ফয়সাল তানভির। বিশ^বিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী ৬ বছরের মধ্যে গ্রাজুয়েশন শেষ করার কথা থাকলেও এখনো তা শেষ করতে পারেননি সে। যার কারনে তার ছাত্রত্ব এখনো রয়েছে কিনা তা নিয়ে সংশয়ে রয়েছে অনেকে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক যাবিপ্রবি ছাত্রলীগ কর্মীরা জানান, তানভিরের মত ছেলে যদি বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক পদের দায়িত্ব দেওয়া হয় তাহলে এ কমিটি গ্রহণযোগ্যতা হারাবে। ছাত্রলীগ চায় ক্লিন ইমেজের একজন নেতা। তাই ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের কাছে সকলের যোগ্যতা যাচাই বাছাই করে সঠিক মানুষকে নেতৃত্বের দায়িত্ব প্রদানের দাবি সকলের।

সংশ্লিষ্ঠ আরও খবর