আজ || শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪
শিরোনাম :
  খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে ইদজামাত আয়োজনের প্রস্তুতি পরিদর্শনে সিটি মেয়র       খুলনায় ঈদের প্রধান জামাত সার্কিট হাউজ মাঠে সকাল ৮টায়       পুত্রবধূর সঙ্গে ঝগড়া করে পুকুরে পড়ে শাশুড়ির মৃত্যু       নিউজিল্যান্ডকে বিপদে ফেলে সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ       নগরীতে ইজিবাইক চালক রায়হান হত্যাকান্ডের মূল রহস্য উন্মোচন : দুই ঘাতক গ্রেফতার       নাড়ির টানে ঘরে ফিরছে মানুষ       যশোরে আইনজীবীর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ নেত্রীর শ্লীলতাহানির মামলা       স্বাভাবিক জীবনে আসা বনদস্যুদের মাঝে র‌্যাবের ঈদ সামগ্রী বিতরণ       ঘুমন্ত মায়ের কোল থেকে শিশু চুরির অভিযোগ       এই সংগ্রাম দেশের স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র রক্ষার : মির্জা ফখরুল    
 


প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শনিবার শপথ নেবেন মোদি

: ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আগামী শনিবার তৃতীয় মেয়াদে শপথ নিতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি। ভারতের গণমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এবার প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হলে নরেন্দ্র মোদি হবেন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী কংগ্রেসের বলিষ্ঠ নেতা জওহরলাল নেহরুর পর তৃতীয় মেয়াদে নিয়োগ পাওয়া কোনো সরকার প্রধান।

সরকার গঠনের উদ্দেশে আজ বুধবার (৫ জুন) নরেন্দ্র মোদি ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে দেখা করতে রাষ্ট্রপতি ভবনে পৌঁছেছেন। এই সাক্ষাতে তিনি তার বর্তমান পদ থেকে পদত্যাগ করবেন। এরপর তিনি নতুন সরকার গঠনের জন্য তার দাবির কথা জানাবেন।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ২৮২ আসনে জয়ী হওয়ার পর নেরেন্দ্র মোদির বিজেপি ২০১৯ সালে আসন পায় ৩০৩টি। আর এবারের নির্বাচনে দলটি পেয়েছে ২৪০টি আসন যা সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭২টি আসনের চাইতে ৩২টি কম। তবে বিজেপির নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক এলায়েন্স (এনডিএ) মিত্ররা জয়ী হয়েছে আরও ৫৩টি আসনে।

নরেন্দ্র মোদি তার লোকসভার আসন উত্তর প্রদেশের বারানসি থেকে কংগ্রেসের অজয় রায়কে দেড় লাখেরও কম ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে তৃতীয়বারের মতো এমপি নির্বাচিত হয়েছেন।

আজ বুধবার (৫ জুন) কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠকে সভাপতিত্ব করার সময় নরেন্দ্র মোদি নির্বাচনের এই ফলাফলকে বিশ্বে সবচেয়ে বড় গণতন্ত্রের জন্য বিজয় হিসেবে উল্লেখ করেন। এর আগে গতকাল সন্ধ্যায় নরেন্দ্র মোদি নিশ্চিত করেছিলেন যে, এনডিএ আবারও কেন্দ্রে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে।
এবারের নির্বাচনে বিজেপি ৩৭০টি আসন পাওয়ার উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য স্থির করেছিল। পাশাপাশি এই লক্ষ্য এনডিএ’র জন্য ধরা হয়েছিল চারশর বেশি। তবে কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ‘ইন্ডিয়া জোট’ চমক দেখিয়ে ২৩২টি আসনে জয়লাভ করে।

এই নির্বাচনে আবারও একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে বিজেপি। এর মধ্যে ওড়িষ্যায় ২১টি আসনের ২০টিতে জয়ী হয় তারা। এছাড়া অন্ধ্রপ্রদেশে ২৫টির মধ্যে ২১টিতে, মধ্যপ্রদেশে ২৯টি আসনের সবকটিতে এবং বিহারে ৪০টির মধ্যে ৩০টিতে জয়ী হয় মোদির দল। দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজগুলোর মধ্যে কেরালায় প্রথমবারের মতো আসন পায় বিজেপি। তবে তামিলনাড়ুতে কোনো আসন পায়নি দলটি। এ রাজ্যের ৩৯টি আসনের সবকটি ক্ষমতাসীন দল ডিএমকে এবং ইন্ডিয়া জোট নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নেয়।

গতকাল মঙ্গলবার উৎফুল্ল বিজেপি সমর্থকদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, ভারতের জনগণ এনডিএ’র প্রতি তাদের আস্থা ধরে রেখেছে। এই নির্বাচনে কিংমেকার হিসেবে আবির্ভূত তেলেগু দেশম পার্টির চন্দ্রবাবু নাইডু ও জনতা দলের নেতা নীতিশ কুমারের অবস্থানকে বিশেষভাবে উল্লেখ করেন নরেন্দ্র মোদি। লোকসভায় নাইডুর দলের রয়েছে ১৬টি আসন আর নীতিশ কুমারের দলের রয়েছে ১২টি আসন।


Top