খুলনায় করোনা ও উপসর্গে দুইজনের মৃত্যু : ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭২ জনের শনাক্ত

খুলনার চিত্র ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত : বুধবার, ৮ জুলাই, ২০২০

খুলনা মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ২৪ঘণ্টায় আরও ৮৯জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যারমধ্যে ৭২জন খুলনা জেলা ও মহানগরীর। এদিকে, করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে চিকিসাধীন অবস্থায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। আজ বুধবার রাতে একাধিক সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, বুধবার খুমেকের আরটি-পিসিআর মেশিনে ২৮০জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যারমধ্যে খুলনার নমুনা ছিল ২৫৩টি। এদের মধ্যে মোট ৮৯জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজেটিভ এসেছে। যার ৭২জন খুলনা জেলা ও মহানগরীর বাসিন্দা। এছাড়া বাগেরহাটে ১২জন, যশোরে দুইজন, সাতক্ষীরায় দুইজন ও গোপালগঞ্জে একজন আক্রান্ত হয়েছেন।

খুলনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডাঃ শেখ সাদিয়া মনোয়ারা ঊষা জানান, বুধবার পর্যন্ত খুলনায় করোনা আক্রান্ত ছিলেন ২ হাজার ৬৮০জন। সন্ধ্যায় খুমেকের ল্যাবে জেলার আরও ৭২ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭৫২জনে। এদের মধ্যে মোট ৬৩২জন সুস্থ হয়েছেন, আর মারা গেছেন ৪২জন।

এদিকে, করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে বুধবার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা সাসপেক্টেড আইসোলেশন ওয়ার্ডে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে নগরীর খালিশপুরের কাশিপুর এলাকার মৃত সেখ ওহাবের ছেলে আবুল কালাম (৬৫) ও উপসর্গ নিয়ে দৌলতপুরের মানিকতলা এলাকার আঃ খালেকের ছেলে জিয়া (৩৯) মারা গেছেন।

খুমেক হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ও আইসোলেশন ওয়ার্ডের মুখপাত্র ডা. মিজানুর রহমান জানান, গত ৬ জুলাই রাত ৯টা ১৫ মিনিট থেকে হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন করোনা আক্রান্ত আবুল কালাম। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বিকাল ৫টায় তার মৃত্যু হয়।

এছাড়া গত ৩ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে জ্বর শ্বাসকষ্ট সমস্যা নিয়ে আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন জিয়া। পরে শারিরিক অবস্থা খারাপ হলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটে তিনি মারা যান। তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কিনা তা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ঠ আরও খবর