আজ || শনিবার, ১৫ Jun ২০২৪
শিরোনাম :
  খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে ইদজামাত আয়োজনের প্রস্তুতি পরিদর্শনে সিটি মেয়র       খুলনায় ঈদের প্রধান জামাত সার্কিট হাউজ মাঠে সকাল ৮টায়       পুত্রবধূর সঙ্গে ঝগড়া করে পুকুরে পড়ে শাশুড়ির মৃত্যু       নিউজিল্যান্ডকে বিপদে ফেলে সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ       নগরীতে ইজিবাইক চালক রায়হান হত্যাকান্ডের মূল রহস্য উন্মোচন : দুই ঘাতক গ্রেফতার       নাড়ির টানে ঘরে ফিরছে মানুষ       যশোরে আইনজীবীর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ নেত্রীর শ্লীলতাহানির মামলা       স্বাভাবিক জীবনে আসা বনদস্যুদের মাঝে র‌্যাবের ঈদ সামগ্রী বিতরণ       ঘুমন্ত মায়ের কোল থেকে শিশু চুরির অভিযোগ       এই সংগ্রাম দেশের স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র রক্ষার : মির্জা ফখরুল    
 


ওয়াশ প্রকল্পের সমাপনী ও লাইন মূল্যায়ন রিপোর্ট শেয়ারিং ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

সোমবার (২১ আগষ্ট) সকালে বরগুনার আরডিআরএফ সভা কক্ষে জরীপকৃত এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা, স্কুল কমিউনিটি ক্লিনিক, ওয়াশ উদ্যাক্তাদের সাথে ওয়াশ প্রকল্পের সমাপনী ও লাইন মূল্যায়ন রিপোর্ট শেয়ারিং ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরগুনা পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-৩ হোসনেয়ারা চম্পা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বরগুনা সদর উপজেলার কেওড়াবুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান নসা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবং মূল্যবান বক্তব্য রাখেন বরগুনার ডিপিএইচই এর নির্বাহী প্রোকৌশলী মোঃ রাইসুল ইসলাম, ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবিএস মাসুদুর রহমান, ঢলুয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুল হক স্বপন, বরগুনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট সঞ্জিব দাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন সিমাভি’র মনিটরিং ইভাল্যুয়েশন এন্ড লার্নিং অফিসার মোঃ শামসুর রহমান। এ সময় তিনি বরগুনা ও পটুয়াখালী অঞ্চলের আরবান (পৌরসভা) এবং রুরাল (গ্রাম) এলাকা ভিত্তিক তুলনামুলক আলোচনা করেন। মূল উপস্থাপনার পর মুক্ত আলোচনায় সকল অংশগ্রহনকারী তাদের মতামত ব্যক্ত করেন এবং সিমাভি এবং পার্টনার সংস্থা (ডরপ, হোপ ফর দ্যা পুরেস্ট, উত্তরণ, প্র্যাকটিকাল একশন, স্লোব বাংলাদেশ) প্রতিনিধিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। ওয়ার্কশপে আরও উপস্থিত ছিলেন স্লোব বাংলাদেশের প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোমিনুল ইসলাম, সিমাভীর প্রোগ্রাম অফিসার সামীর কুমার পাল, উত্তরণের প্রকল্প সমন্বয়কারী হাসিনা পারভীন , এইচপি’র প্রজেক্ট ম্যানেজার ওয়াহিদুর রহমান পিএবি মিউনিসিপালিটি কোঅর্ডিনেশন অফিসার গুলশানারা মেরীসহ প্রকল্পের অন্যান্য সহকর্মীবৃন্দ এবং পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিনিধি,মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক,স্যাকমো প্রতিনিধি,সিএসও প্রতিনিধি,এমএফআই প্রতিনিধি,সাংবাদিক, ব্যাবসায়ীবৃন্দ।
উক্ত শেয়ারিং মূল্যায়ন অনুষ্ঠানে নেদারর‌্যান্ড সরকারের আর্থিক সহযোগিতায় ওয়াশ এসডিজি প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত শেষ জরিপে উক্ত ফলাফল পাওয়া যায়। জরিপে দেখা যায় যে বেইজলাইন (২০১৮) জরিপে প্রাপ্ত ফলাফল থেকে এন্ডলাইন জরিপে উন্নত উৎস থেকে পানি পানের হার বেড়েছে। কিন্তু পানিতে ই-কোলাই ব্যাকটেরিয়া দূষণ পাওয়া গেছে ৪০% নমুনাতে এবং আর্সেনিক পাওয়া গেছে ৯ শতাংশ নমুনাতে। পানীয় জলের উৎসের দূরুত্ব কমেছে যা গড়ে ৯.৫ মিনিট। বেইজলাইন জরিপে ১৭% গৃহস্থালির পানীয় জলের উৎস থেকে পানি সংগ্রহ করতে ৩০ মিনিটের বেশি সময় লাগত। এছাড়া ওপেন ডেফিকেশন (খোলা জায়গায় মলত্যাগ) প্রায় শূন্যের ঘরে এসেছে। হাইজিন অনুশীলন বেড়েছে ৯% থেকে ৯৩% এ।এ জরিপে মোট ১১১০ খানা , ২৯ স্কুল , ০৯ কমিউনিটি ক্লিনিক অংশগ্রহন করে। মোট ৫৫৫ খানার পানির নমুনা পরিক্ষা করা হয় তিনটি প্যারামিটারে (আর্সেনিক, লবণাক্ততা এবং ই-কোলাই ব্যাকটেরিয়া)। এ জরিপে কলাপাড়া পৌর এলাকার ১৬০ খানা অর্ন্তভুক্ত করা হয়। এখানে উল্লেখ্য যে ২০১৮ সালে প্রকল্প এর শুরুতে পানি,স্যানিটেশন এবং হাইজিন সর্ম্পকিত বিষয়ে জরিপ করা হয়েছিল এবং প্রকল্পের শেষে ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসে শেষ জরিপে উক্ত একই বিষয়গুলো বিশ্লেষণ করা হয়। এতে দেখা গেছে প্রায় প্রতিটি সূচকে পানি,স্যানিটেশন এবং হাইজিনের পরিস্থিতি উন্নীত হয়েছে। তবে ব্যাকটেরিয়া দূষণ বেড়েছে বেইজলাইন এ ৩৪% ছিল।


Top