ইউনূস-হিলারি-শেরি ব্লেয়ারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা চান এমপি নিক্সন

খুলনার চিত্র ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০২২

পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস, যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন ও যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ারের স্ত্রী শেরি ব্লেয়ারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার দাবি উঠেছে সংসদে। ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞা দিতে এ দাবি জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এমন দাবি জানান।

আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, অত্যন্ত কষ্টের সঙ্গে বলতে চাই কোনো অপরাধ ছাড়া কেন এই ষড়যন্ত্রের শিকার হতে হয়েছে। এরই মধ্যে কানাডার আদালতে প্রমাণ হয়েছে এখানে কোনো দুর্নীতি হয়নি। পদ্মা সেতু যাতে বাস্তবায়ন না হয় এজন্য দেশ-বিদেশে যারা এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

এসময় তিনি ড. ইউনূস, হিলারি ক্লিনটন ও টনি ব্লেয়ারের স্ত্রীর ওপর স্যাংশন (নিষেধাজ্ঞা) দেওয়ার দাবি জানান। যাতে ভবিষ্যতে বাংলাদেশে এসে নতুন করে কোনো ষড়যন্ত্র না করতে পারে। এছাড়া বাংলাদেশের যারা এই ষড়যন্ত্রে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা দিয়ে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান নিক্সন। তাদের মধ্যে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া এবং তার বড় ছেলে তারেক রহমানের নাম উল্লেখ করেন তিনি।

মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধী ও বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার করে এরইমধ্যে প্রমাণ করেছেন তার সরকারের আমলে কেউ অপরাধ করে রেহাই পাবে না। গরিবের হাজার কোটি টাকা দুর্নীতি করে যারা বিদেশের ব্যাংকে রেখেছেন, যাদের নাম পানামা পেপারস এবং প্যারাডাইস পেপারসে এসেছে- শিগগির দুদকের মাধ্যমে তদন্ত করে তাদের বিচারের আওতায় আনা হোক।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের অর্থনীতিতে প্রবাসী ভাইয়েরা বড় ভূমিকা পালন করেন। তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সের মাধ্যমে অর্থনীতির চাকা সচল থাকে। প্রবাসী ভাইয়েরা বিমানবন্দরে বিভিন্নভাবে হয়রানির শিকার হন। বিমানবন্দরে নেমে এই রেমিট্যান্স যোদ্ধারা যেন হয়রানির শিকার না হন সে লক্ষ্যে থার্ড টার্মিনালে ট্যাক্স, কাস্টমস সেল স্থাপনের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

সংশ্লিষ্ঠ আরও খবর